ব্লগিং করে কিভাবে আয় করবেন?

আজকে আমরা যে বিষয় নিয়ে কথা বলব সেটা হচ্ছে ব্লগিং করে কিভাবে আয় করা যায় বা একটা ব্লগ তৈরী করে আমরা কিভাবে ইনকাম করতে পারি।  আমরা দেখব ব্লগ ওয়েবসাইটে কি কি আর্নিং ফ্যাসিলিটিজ আছে। আজকের এই টপিকে আমরা একটু ডিটেলস সেটা বুঝার ট্রাই করব। প্রথমে আমরা যেটা নিয়ে কথা বলব সেটা হল এফিলিয়েট প্রোডাক্ট প্রোমোটিং। সেটা কি ? ধরুন একজন ব্লগার ব্লগ লিখেছেন , উনার ব্লগ লেখার শেষে উনি একটা লিংক দিয়ে দিয়েছেন  এমাজন ডট কম এর।  এই লিংকে কিছু বই এর নাম দেয়া আছ।  এই লিংক থেকে ক্লিক করে যদি কেউ একটা বই কিনে তাহলে সেই বই থেকে তাহলে সেটা বিক্রির একটা কমিশন চলে যাবে সেই ওয়েবসাইট ওনার এর কাছে ।এ রকম হাজার হাজার প্রোডাক্ট রয়েছে মার্কেটে । আপনি যখন আপনার পছন্দমত প্রোডাক্ট এর লিংক (যেটা আপনার ব্লগের সাথে যায়) আপনারা ব্লগ এ দেন এবং মানুষ সেখান থেকে কিনে তবে খুব সহজেই আপনি ইনকাম করতে পারবেন ।

চলুন আমরা দেখি এফিলিয়েট মার্কেট প্লেস কোনগুলো :

১) আমাজন এসোসিয়েটস

২)ক্লিকব্যাংক

৩)আলী এক্সপ্রেস

৪)ই বে পার্টনারস

৫)শেয়ার এ সেল এফিলিয়েটস

এরকম আরোও অনেক এফিলিয়েট মার্কেট প্লেস আছে ,আপনি গুগল এ একটু সার্চ দিলেই আপডেট পেয়ে যাবেন। যেখানে আপনারা একজন পাবলিশার হিসেবে সাইন আপ করে আপনি ওদের প্রোডাক্ট নিয়ে নিজের ওয়েবসাইট এ প্রমোট করতে পারবেন | আপনার উনিক একটা এফিলিয়েট লিংক জেনারেট হবে  , যে লিংক দিয়ে প্রমোট করবেন যখন তখন ওয়েবসাইট থেকে কেউ অর্ডার করলে আপনার ইনকাম হিসেবে কাউন্ট  হবে ।

এরপর হচ্ছে এড স্পেস সেল করে।  একটা ব্লগ বা ওয়েবসাইটে বিভিন্ন ধরণের বিভিন্ন সাইজের এড স্পেস থাকে। এই স্পেসগুলো আপনার ওয়েবসাইটে যখন ভাল মানের ট্রাফিক থাকবে তখন মানুষজন আপনাকে অফার করবে যে আপনার ওয়েবসাইটে এখানে আপনি একটা এড দিতে চাই, আপনি মান্থলি , ইয়ারলি বা কি হিসাবে কত টাকা নিবেন ? তখন আপনি মান্থলি বেসিসে কন্ট্রাক্টে যাবেন তার সাথে।  এবং একটি প্লেস এর জন্য আপনি ভালো পরিমান রেভেনিউ  করতে পারেন।

এরপর আমরা করতে পারি সিপিএ অফার কমপ্লিট করে । আমাদের সিপিএ এর একটা কমপ্লিট কোর্স আছে।  আপনারা আমাদের প্লেলিস্ট থেকে সিপিএ কোর্স তা পাবেন।  এ কোর্স করে নিয়ে আপনি আপনার ব্লগ থেকে একটা ভাল পরিমান ইনকাম করতে পারবেন সিপিএ এর অফারগুলো কমপ্লিট করে ।

এরপর আমরা করতে পারি স্পন্সরড পোস্ট লিখে । ধরেন আপনার একটা ব্লগ অনেক ভাল পরিমান ট্রাফিক আছে ভিজিট আছে । এই ব্লগটিতে অনেকে আপনাকে অফার করতে পারে , যে তার কোম্পানির ব্র্যান্ডিং করে দেয়ার জন্য । আপনি একটা স্পন্সরড পোস্ট লিখে দেন । তখন আপনি তাদের সম্পর্কে লিখে তাদের প্রোডাক্ট সম্পর্কে লিখে খুব ভাল মানের একটা ইনকাম করতে পারেন।

এরপর আমরা যেটা করতে পারি গুগল এড সেন্স থেকে ইনকাম করতে পারি । আপনার ব্লগ যখন ভাল পরিমান কনটেন্ট থাকবে ,ভাল পরিমান ট্রাফিক থাকবে একটা নির্দিষ্ট পর্যায়ে আপনি গুগল এড সেন্স এর জন্য আপনি এপলাই করতে পারবেন । সেটা গৃহীত হয়ে গেলে আপনি এড সেন্স থেকেও সেই পরিমান ইনকাম করতে পারবেন ।

এর পর যেটা করতে পারবেন সেটা হলো নিজস্ব ই কমার্স বিসনেস রানিং করে আপনি ইনকাম করতে পারবেন । ধরেনা আপনি একটা নিশের উপর , একটা ক্যাটাগরির উপর আপনি আপনার  ব্লগ স্ট্যাবলিশ করে ফেলেছেন । এখন সেই নিশ বা ক্যাটাগরির উপর আপনি যদি প্রোডাক্ট সেল করেন আলাদা একটা এই কমার্স সাইট করে অথবা ওই ওয়েবসাইটেরই প্রাইস বা একটি ইনফরমেশন দিয়ে রাখলে আপনি ভাল পরিমানে একটা সেল পাবেন । তো এই জিনিশটা সম্ভব হচ্ছে ব্লগিং এর মাধ্যমে ।

এরপর আসি কিসের উপর আপনার ওয়েবসাইট ইনকাম ডিপেন্ড করবে?

১) ডেইলি ইউনিক ভিজিটর

২) ডেইলি পেজ ভিউস

৩) অ্যাভারেজ টাইম ওন সাইট

৪) কি ওয়ার্ডস ভ্যালু

৫) ট্রাফিক সোর্স

৬) অর্গানিক ভার্সেস পেইড ট্রাফিক

৭) ডোমেইন এজ

৮) ডোমেইন নাম

৯) ওয়েবসাইট এসইও এবং স্পীড অপ্টিমাইজেশন

আবার আসুন ব্লগ সাইট কিভাবে শুরু করবেন ?

ব্লগসাইট শুরু করার সবচেয়ে ভাল দুটি ওয়ে হল ব্লগস্পট এবং ওয়ার্ডপ্রেস । আমি রেকোমেন্ড করব ওয়ার্ডপ্রেস এই কাজের জন্য।  যদি আপনার সামান্য কিছু টেকনিকাল নলেজ থাকে , কিছু টাকা পয়সা খরচ করে ডোমেইন হোস্টিং কিনে ফেলেন তবে তা আপনার জন্য খুব ভাল। আর যদি ফ্রি করতে চান তাহলে ব্লগস্পট হচ্ছে বেস্ট আপনার জন্য ।

ব্লগস্পটের কিছু লিমিটেশন আছে।  যেমন পুরোপুরি নিয়ন্ত্রণ আপনার হাতে থাকবে না ব্লগস্পটের।  ফিচারের কিছু সীমাবদ্ধতা আছে । সে জায়গায় ওয়ার্ডপ্রেসের পুরো কন্ট্রোল আপনার হাতে থাকে ।

এবার আসি আমাদের  কোন কোন কোর্স থেকে আপনারা ব্লগিং এর মাধ্যমে  ইনকাম করতে পারবেন ?

১) ওয়ার্ডপ্রেস

২) ডিজিটাল মার্কেটিং

৩) কনটেন্ট রাইটিং

৪) ইংলিশ

৫) সিপিএ মার্কেটিং

৬)গ্রাফিক্স ডিজাইন

৭)এফিলিয়েট মার্কেটিং

আমাদের চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করে এখনি কোর্স শুরু করে দিন

Leave a Reply